ফেয়ারফিল্ড শো-গ্রাউন্ডে বর্ণাঢ্য আয়োজনে বাঙালি কমিউনিটির প্রাণের মেলা ঐতিহ্যবাহী ‘বৈশাখী মেলা’ অনুষ্ঠিত

0

গত ৭ এপ্রিল (শনিবার) বঙ্গবন্ধু পরিষদ সিডনি, অস্ট্রেলিয়ার উদ্যোগে ফেয়ারফিল্ড শো গ্রাউন্ডে অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী বাঙালি কমিউনিটির প্রাণের মেলা ঐতিহ্যবাহী ‘বৈশাখী মেলা’ অনুষ্ঠিত হয়। গত ১৮ বছর ধরে বঙ্গবন্ধু পরিষদ সিডনি অস্ট্রেলিয়া এই বৈশাখী মেলার আয়োজন করে আসছে।

অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী বাংলাদেশিরা ইতিহাস সৃষ্টি করেছে এবারের বাংলা নববর্ষ উদযাপনে।

সিডনির ফেয়ার ফিল্ড শো গ্রাউন্ডে প্রায় বিশ হাজার প্রবাসী বাংলাদেশি এবার সামিল হয়েছে বৈশাখী উৎসবে। সিডনি ছাড়াও অনেকে প্রবাসী এসেছে বিভিন্ন রাজ্য থেকে।

দর্শনার্থীদের সুবিধার জন্য এবার মেলা প্রাঙ্গনে প্রায় দুই হাজারেরও বেশি ফ্রি পার্কিং সহ, এটিএম বুথ ও নামাজের ব্যবস্থা ছিল। পাসাপাশি দর্শক শ্রোতাদের সুবিধা বিবেচনা করে অনলাইন এ টিকেট প্রাপ্তির বন্দোবস্ত করা হয়।

বিকেল ৪টায় দেশের ও অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় সঙ্গীত দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। এর পর সঞ্জয় টাবু ও আশিক সুজনের সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্য দেন মেলা কমিটির আহ্বায়ক গাউসুল আলম শাহজাদা।

কিশোর সংঘ, কিশলয় কচিকাঁচা ও একতারা’র ক্ষুদে শিল্পীরা একক ও দলীয় গান ও নৃত্য পরিবেশন করে। ক্ষুদে শিল্পীদের এই মন জুড়ানো পরিবেশনায় পুরো মেলা প্রাঙ্গণে ছিল মুহুর্মুহু করতালি। পাশাপাশি বৈশাখী মেলার উম্মুক্ত মঞ্চে ছিল শিশু কিশোর শিল্পীদের অংশগ্রহণে দেশাত্মবোধক গান, ছড়া, কবিতা, নাচের সুবিশাল আয়োজন।

মেলার অন্যতম আকর্ষন দেশ থেকে আগত জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী ফেরদৌস ওয়াহিদ ও হাবিব ওয়াহিদ গান পরিবেশন করে মেলার দর্শকদের সুরের মুর্ছনায় মাতিয়ে রাখে। প্রতিবারের মতো এবারেও মেলায় ছিল বর্ণিল আলোকসজ্জা, জমকালো ফায়ার ওয়ার্কস ও রাফেল ড্র।

সিডনির আকাশে একটানা ১৫ মিনিট ছিল এ আলোর ঝলকানি | ছোট শিশু কিশোরদের আনন্দ আর নাচে পুরো শোগ্রউন্ড ছিল আনন্দ মুখর।

সবশেষে বঙ্গবন্ধু পরিষদ সিডনি, অস্ট্রেলিয়ার সাধারণ সম্পাদক এবং মেলা কমিটির আহ্বায়ক গাউসুল আলম শাহজাদা তার শুভেচ্ছা বক্তব্যে প্রবাসী কমিউনিটির সার্বিক সহযোগিতার কথা গভীর কৃতজ্ঞতা ও শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করে সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে মেলার আলোচনা পর্বের সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

Share.

About Author

Leave A Reply